আর্থিক সংকটে বন্ধ হচ্ছে সূর্যের হাসি ক্লিনিক

0
আর্থিক সংকটে বন্ধ হচ্ছে সূর্যের হাসি ক্লিনিক

আর্থিক সংকটে বন্ধ হচ্ছে সূর্যের হাসি ক্লিনিক

সিটিএনবিঃ দেশে বন্ধ হতে যাচ্ছে সূর্যের হাসি ক্লিনিক। আগামী ৩০ জুনের পর দেশের ৯০টি ক্লিনিক সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিতে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। গত ৫ এপ্রিল ক্লিনিকগুলো বন্ধের সিদ্ধান্ত জানিয়ে স্বাস্থ্য সচিবকে চিঠি দিয়েছেন সূর্যের হাসি নেটওয়ার্কের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী। গত শুক্রবার ই-মেইলে সেই সিদ্ধান্ত জানিয়ে চিঠি ইস্যু করা হয়েছে বন্ধ হয়ে যাওয়া ক্লিনিকগুলোর ব্যবস্থাপকদের।

এসব ক্লিনিকগুলো থেকে দরিদ্র মানুষরা স্বল্পমূল্যে স্বাস্থ্যসেবা পেতেন। গত ২০ বছর ধরে সূর্যের হাসি ক্লিনিক দেশের ৬৪ জেলায় স্বল্পমূল্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সেবা দিয়ে আসছে। আগে এগুলো বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার মাধ্যমে পরিচালিত হতো। ২০১৮ সালে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কাছ থেকে ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব দেওয়া হয় সূর্যের হাসি নেটওয়ার্ককে।

তারাই আগামী জুন থেকে এ কার্যক্রমটি বন্ধ করে দিতে যাচ্ছে। সূর্যের হাসি নেটওয়ার্কের মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান মুশফিকুল আজম জানান, সেবা প্রদানে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় হচ্ছে তা অসঙ্গতিপূর্ণ এবং টেকসই নয়। বহু বছর আগে স্থাপিত এই ক্লিনিকগুলো এখন প্রয়োজনীয়তা হারিয়েছে। এ কারণে কর্তৃপক্ষ ক্লিনিকগুলো বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

যেসব ক্লিনিক বন্ধ করা হচ্ছে, সেগুলোকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে। ক্লিনিক ব্যবস্থাপকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সূর্যের হাসি ক্লিনিকে স্বল্পমূল্যে মাতৃত্ব ও গর্ভকালীন সেবা, শিশু স্বাস্থ্য, বিনামূল্যে টিকাদান কর্মসূচি, পরিবার পরিকল্পনা সেবা, স্বল্পমূল্যে প্যাথলজি পরীক্ষা, স্বল্পমূল্যে ভ্যাকসিনেশন সেবা দেওয়া হয়ে থাকে। বগুড়ার সোনাতলা ক্লিনিকের ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম জানান, গড়ে প্রতিদিন এসব ক্লিনিকে ৬০ জনের বেশি মানুষ সেবা নেন।

প্রতিটি ক্লিনিকে কর্মরত আছে ১০ থেকে ১২ জন করে। রাজশাহীর গোদাগাড়ী ক্লিনিকের ব্যবস্থাপক ফিরোজ কবীর জানান, বন্ধের চিঠি অন্য ক্লিনিকে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে তিনি দেখেছেন, বন্ধের তালিকায় তার ক্লিনিকের নামটিও আছে। মোহনপুরের ব্যবস্থাপক হাসায়েদ হোসেন ঢালি জানান, ক্লিনিকগুলোর প্রয়োজনীয়তা এখনো আছে। প্রতিদিন যে পরিমাণ মানুষ এখানে সেবা নিতে আসেন, তাতে ক্লিনিকের প্রয়োজনীয়তা বোঝা যায়।

কিন্তু তারপরেও ক্লিনিকগুলো বন্ধের সিদ্ধান্ত তাদের কাছে যৌক্তিক মনে হয়নি। তারা এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলবেন।

সূর্যের হাসি নেটওয়ার্কের বগুড়া অঞ্চলের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক ডা. এফ এ এম মোস্তফা সরকার জানান, আগামী ৩০ জুন থেকে ক্লিনিকগুলো বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এটি প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে। আর্থিক সংকটের কারণে দাতা সংস্থার পরামর্শে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।